আদিবাসীদের প্লট বরাদ্দে কোন অনিয়ম সহ্য করা হবে না-গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী

গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি বলেছেন পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প এলাকার আদিবাসী ও সাধারন ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্লট বরাদ্দে কোন প্রকার অনিয়ম সহ্য করা হবে না।

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সম্মেলন কক্ষে পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প এলাকায় আদিবাসী ও ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্লট বরাদ্দ বিষয়ক বিশেষ সভায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের শুরুর দিকে প্রকল্প এলাকা নৌকাযোগে পরিদর্শণ করেন।u

পরিদর্শণকালে তিনি প্রকল্প এলাকার স্থায়ী অধিবাসী ও ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতিশ্রুতি দেন যে তিনি রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বভার পেলে প্রকল্প এলাকার আদিবাসী ও সাধারণ ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক প্লট বরাদ্দের ব্যবস্থা করবেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। উক্ত এলাকার সকল আদিবাসী ও সাধারণ ক্ষতিগ্রস্তকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্লট বরাদ্দ দেওয়া আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।

এ দায়িত্ব পালনে কারো বিন্দুমাত্র শৈথিল্য বা অবহেলা সহ্য করা হবে না। এ কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে তিনি পবিত্র দায়িত্ব মনে করে আগামী বৃহস্পতিবার এর মধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের প্লট বরাদ্দের জন্য সকল আবেদন যাচাই বাছাই পূর্বক চূড়ান্ত তালিকা প্রণয়নের নির্দেশনা প্রদান করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসেই পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প এলাকার সকল আদিবাসী ও সাধারণ ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে প্লট বরাদ্দ দেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আমরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছি।

সেই প্রতিশ্রুতি রক্ষায় আপনারা সকলে মিলে আন্তরিকতা, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে সহযোগিতা করবেন।

প্রকল্প এলাকার প্রকৃত আদিবাসী ও সাধারণ ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা প্রণয়নে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসন ও রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের যৌথ যাচাই বাছাই কমিটির মাধ্যমে তিনি চূড়ান্ত তালিকা প্রণয়নের নির্দেশনা প্রদান করেন।

উল্লেখ্য যে, চলতি ডিসেম্বরের মধ্যে পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প এলাকার আদিবাসী ও সাধারণ ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে প্লট বরাদ্দের জন্য ইতোমধ্যেই প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। সে চলমান প্রক্রিয়ার অগ্রগতি পর্যালোচনার জন্য আজকের এই বিশেষ সভার আয়োজন করা হয়।

................... Social Sharing .................